পাসপোর্টটা এবার করেই ফেলুন 28/09/2016



হঠাৎ করেই ঘুরতে যাওয়ার প্লান করলেন। ঝামেলা হয়ে গেল কারণ পাসপোর্ট করা নেই। অনেকেই আমরা ঝামেলার ভয়ে পাসপোর্ট করতে চাই না। কোনরকম ঝামেলা ছাড়া ই এখন করে ফেলতে পারেন আপনার পাসপোর্ট।এখন অনলাইনেই করে ফেলা যায় পাসপোর্টের ‘কর্ম’। তবে এজন্য আপনাকে বাইরেও যেতে হবে। প্রথমত টাকা জমা দিতে। অবশ্য চাইলে এটাও আপনি অনলাইনেই জমা দিতে পারেন। সম্প্রতি কয়েকটি নির্দিষ্ট ব্যাংকেও অনলাইনে পাসপোর্টে টাকা জমা দেয়ার ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। যা এ প্রক্রিয়াকে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে গেছে।
আসুন জেনে নেয়া যাক পাসপোর্ট করতে গেলে অনুসরণীয় কয়েকটি ধাপ

১ম ধাপ : টাকা জমা
অনলাইনে পাসপোর্ট করতে হলে প্রথমে টাকা জমা দিতে হবে। কেননা অনলাইনে ফর্ম পূরণ করার সময় টাকা জমা দেওয়ার তারিখ এবং জমা দানের রিসিটের নম্বর উল্লেখ করার প্রয়োজন হয়। তাই ফর্ম পূরণের আগে টাকা জমা দিতে হবে। রেগুলার ফি ৩ হাজার টাকা এবং জরুরি পাসপোর্ট করতে হলে তার ফি ৬ হাজার টাকা। রেগুলার ফিতে পাসপোর্ট পেতে সময় লাগবে এক মাস। জরুরিভিত্তিতে করতে চাইল ১৫ দিনের মত সময় লাগবে।

২য় ধাপ : অনলাইনে ফরমপূরণ
এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। খুব মনোযোগ দিয়ে অনলাইনের ফরম পূরণ করতে হবে। যেন কোনো ভুল ত্রুটি না হয়। অনলাইনে ফরম পূরণের জন্য প্রথমে পাসপোর্ট অফিসের এ সাইটে যেতে হবে।

তারপর ‘I have read the above information and the relevant guidance notes’ টিক চিহ্ন দিয়ে ‘continue to online enrollment’ এ ক্লিক করতে হবে।

আপনার নাম ও ব্যক্তিগত তথ্যাদি- যেমন : আপনার নাম, পিতা-মাতার নাম। এই নামগুলো যেন শিক্ষাগত সার্টিফিকেট কিংবা জাতীয় পরিচয়পত্রের মতো একই হয়। কোনো তথ্য ভুল হলে পাসপোর্টে হতে সমস্যা হবে।
মেইল অ্যাড্রেস ও মোবাইল নম্বার দেয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই যেটি ব্যবহৃত হচ্ছে সেটি দেয়া উচিত।

টাকা জমা দেয়ার তারিখ এবং রিসিট নম্বর দিতে হবে। পাসপোর্ট টাইপ সিলেক্ট করতে হবে ‘ordinary’। যে অংশগুলো লাল স্টার মার্ক দেয়া রয়েছে, সেগুলো অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

Delivery Type অংশে ৩০ দিনের জন্য হলে Regular এবং ১৫ দিনের জন্য হলে Express সিলেক্ট করতে হবে।

সম্পূর্ণ ফরমটি পূরণ হলে পুনরায় এটি চেক করতে হবে। সব তথ্য টিক আছে কি না, তা যাচাই করে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।

সবশেষে পূরণ করা ফরমটি সাবমিট করতে হবে। সফলভাবে সাবমিট করা হলে পূরণ করা ফরমের একটি পিডিএফ কপি যে ই-মেইল অ্যাড্রেস দিয়ে ফরম পূরণ করা হয়েছে, সেখানে চলে আসবে।

৩য় ধাপ : ফর্মের প্রিন্ট এবং সত্যায়ন
এবার মেইলে আসা পিডিএফ কপির ২ কপি কালার প্রিন্ট করতে হবে। এতে আবেদনকারীর স্বাক্ষর করার স্থনে সই করতে হবে। এবার নিজের চার কপি ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং পাসপোর্ট ফর্ম নিয়ে পরিচিত কোনো প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তার কাছ থেকে সত্যায়িত করে নিতে হবে। পরিচিত কাউকে দিয়ে সত্যায়ন করালে ভাল। কারণ ওই কর্মকর্তার নাম, যোগাযোগ ও ফোন নম্বর এবং জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর ফরমে লিখতে হয়।

৪র্থ ধাপ : পুরো ফরম রিচেক
সত্যায়িত ছবি এবং ব্যাংকের রিসিট আঠা দিয়ে ফরমের সঙ্গে যুক্ত করতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপিটিও প্রিন্ট করা ফরমটির সঙ্গে যুক্ত করে দিতে হবে। শিক্ষার্থী হিসেবে আবেদন করলে অবশ্যই স্টুডেন্ট আইডি কার্ডের ফটোকপি সত্যয়িত করে ফরমের সঙ্গে যুক্ত করতে দিতে হবে। এসব ধাপ শেষ করলে ফর্মটি জমা দেয়ার জন্য প্রস্তুত।

৫ম ধাপ : ফরম জমা এবং ছবি তোলা
অনলাইনে ফর্ম পূরণের জন্য ১৫ দিনের মধ্যে ফর্মের প্রিন্ট কপি, সত্যায়িত ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র এবং স্টুডেন্ট আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়ে যেতে হবে পাসপোর্ট অফিসে।

পাসপোর্ট অফিসে যাওয়ার সময় অবশ্যই সাদা পোশাক পরবেন না। সকালের দিকে পাসপোর্ট অফিসে গেলে ভালো হয়। তখন লাইনে ভিড় কম থাকে। সরাসরি মেইন গেইট দিয়ে মূল অফিসে ঢুকতে হবে। সেখানে দায়িত্বরত সেনা সদস্যকে জিজ্ঞেস করুণ কোন রুমে যেতে হবে। সাইন শেষে জানিয়ে দেয়া হবে ছবি তোলার জন্য কোন রুমে যেতে হবে।

এরপর নির্দিষ্ট রুমে গিয়ে সিরিয়াল আসলে ছবি তোলার জন্য ডাক পড়বে। ছবি তোলার পর ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিতে হবে। এবার পাসপোর্ট রিসিভের একটা রিসিট দেয়া হবে। পুলিশ ভেরিফিকেশন সাপেক্ষে, রিসিট পাওয়ার একমাস বা ১৫ দিনের মধ্যেই আপনি পাসপোর্ট পাবেন।

নির্ধারিত দিনে রিসিভটি নিয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে হবে।

আপনি চাইলে পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে পারেন। এমআরপির আবেদন ফরম সংগ্রহ ও জমা দেওয়া যাচ্ছে দেশের ১০টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে। প্রতিটি আঞ্চলিক অফিসের অধীনে রয়েছে কয়েকটি জেলা।

আবেদনপত্র গ্রহণ অফিস

অন্তর্ভুক্ত এলাকাসমূহ

প্রধান কার্যালয়: পাসপোর্ট ভবন, ই-৭, আগারগাঁও, শের-ই-বাংলা নগর, ঢাকা – ১২০৭। ফোন: ৮১৫৯৫২৫

মতিঝিল, পল্টন, খিলগাঁও, সবুজবাগ, মিরপুর, শাহ আলী, পল্লবী, কাফরুল, তেজগাঁও, মোহাম্মদপুর, আদাবর, গুলশান, ক্যান্টনমেন্ট, খিলক্ষেত, রমনা, শাহবাগ, নিউ মার্কেট, ধানমন্ডি, হাজারীবাগ, ধামরাই, সাভার।

উত্তরা কার্যালয়: হাউজ # ২৯, রোড # ৭, সেক্টর # ১২, উত্তরা, ঢাকা।

ফোন: ৮৯৬২০৩৯

উত্তরা, দক্ষিনখান, উত্তরখান, তুরাগ, এয়ারপোর্ট, বাড্ডা, আশুলিয়া, গাজীপুর।

যাত্রাবাড়ি কার্যালয়: হাউজ # ৩৬০৫, মুজাহিদনগর, রায়েরবাগ, কদমতলী, ঢাকা।

সবুজবাগ, ডেমরা, শ্যামপুর, কদমতলী, খিলগাঁও, গেন্ডারিয়া, কেরাণীগঞ্জ মডেল থানা, কেরাণীগঞ্জ, দক্ষিণখান থানা, চক কোতয়ালী, দোহার, নবাবগঞ্জ, সূত্রাপুর, নারায়ণগঞ্জ।  

চট্টগ্রাম পাসপোর্ট অফিস: ৫৪, পাঁচলাইশ, চট্টগ্রাম।

ফোন: ০৩১-২৫৫০০১০

কোতয়ালী, পাহাড়তলী, চাঁদগাঁও, পাঁচলাইশ, বন্দর, ডবলমুরিং, কর্ণফুলী, খুলশী, হালিশহর, বায়েজিদ বোস্তামী বাকলিয়া, পতেঙ্গা, মিরসরাই, হাটহাজারী, সীতাকুন্ড, রাউজান থানা

কুমিল্লা পাসপোর্ট অফিস: রেসকোর্স, কুমিল্লা।

ফোন: ০৮১-৬৫৭৮৬

কুমিল্লা সদর (কোতয়ালী), চান্দিনা, বুড়িচং, দেবিদুয়ার, দাউদকান্দি, হোমনা, ব্রাহ্মণপাড়া, মুরাদনগর, মেঘনা, মনোহরগঞ্জ, তিতাস থানা

ময়মনসিংহ পাসপোর্ট অফিস: জিলা স্কুল রোড, ময়মনসিংহ।

ফোন: ০৯১-৬৬৩৫৭

ময়মনসিংহ জেলা।

গোপালগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস: চাঁদমারী রোড, গোপালগঞ্জ।

ফোন: ০৬৬৮-৫৭০৮৯

গোপালগঞ্জ জেলা।

নোয়াখালী পাসপোর্ট অফিস: গাবুয়া, মাইজদী, নোয়াখালী।

ফোন: ০৩২১-৬১৭৪০

নোয়াখালী জেলা।

রাজশাহী পাসপোর্ট অফিস: হামেতখান, রাজশাহী।

ফোন: ০৭২১-৭৭২২৪৮

রাজশাহী জেলা।

রংপুর পাসপোর্ট অফিস: রোড নং # ৫, মুলাটোল, রংপুর।

ফোন: ০৫২১-৬৩২৫০

রংপুর জেলা।

সিরাজগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০৭৫১-৬২৯০৩

সিরাজগঞ্জ জেলা।

খুলনা পাসপোর্ট অফিস: সোনাডাঙ্গা, খুলনা।

ফোন: ০৪১-৭৩২১৪৬

খুলনা জেলা।

যশোর পাসপোর্ট অফিস: চার খাম্বার মোড়, যশোর।

ফোন: ০৪২১-৭৩৫০৭

যশোর জেলা।

বরিশাল পাসপোর্ট অফিস: ব্রান্ধি রোড, বরিশাল।

ফোন: ০৪৩১-৬৪৫৪৯

বরিশাল জেলা।

সিলেট পাসপোর্ট অফিস: শেখ ঘাট, সিলেট।

ফোন: ০৮২১-৭১৪০২২

সিলেট জেলা।

হবিগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস: কোরেশ নগর এলাকা, হবিগঞ্জ।

ফোন: ০৮৩১-৫২৮৯৪

হবিগঞ্জ জেলা।

ফরিদপুর পাসপোর্ট অফিস: ঝিলতুলী, ফরিদপুর।

ফোন: ০৬৩১-৬২৭৮৭

ফরিদপুর জেলা।

চাঁদপুর পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১৬-৬০৭৮৬৪

চাঁদপুর জেলা।

মানিকগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস

মানিকগঞ্জ জেলা।

মুন্সীগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৮১৯-১৯৫৭০০

মুন্সীগঞ্জ জেলা।

বগুড়া পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১২-০৫২০১৮

বগুড়া জেলা।

দিনাজপুর পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৮১৯-২৯২৬৭২

দিনাজপুর জেলা।

পাবনা পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-৯৪৮৬৮১

পাবনা জেলা।

পটুয়াখালী পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১৬-০১৯৫৫০

পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলা।

মৌলভীবাজার পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-৩২৫৩৫২

মৌলভীবাজার জেলা।

টাঙ্গাইল পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-৫৬৬৮৯৫

টাঙ্গাইল জেলা।

চাঁদগাঁও, চট্টগ্রাম পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-১৪২৬১৮

চাঁদগাঁও।

কিশোরগঞ্জ পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-১৩৫০৬৯

কিশোরগঞ্জ জেলা।

নরসিংদী পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৮১৯-২৬০৬৯৩

নরসিংদী জেলা।

ফেনী পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১৪-৪৯২৮৮৩

ফেনী জেলা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১১-১৪৫২৮৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা।

কক্সবাজার পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭৩৮-২৫৮৫৬১

কক্সবাজার জেলা।

রাঙ্গামাটি পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৭১৮-১০১১১৬

রাঙ্গামাটি জেলা।

কুষ্টিয়া পাসপোর্ট অফিস

ফোন: ০১৫৫২-৪৮৯০৩০

কুষ্টিয়া জেলা।

 

বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভাগীয় ও আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসসমূহের আওতায় সোনালী ব্যাংকের নির্ধারিত শাখাসমূহের তালিকা:

বিভাগীয়/আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের নাম

ব্যাংকের শাখার নাম

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, আগারগাঁও, ঢাকা।

আগারগাঁও, মহাখালী, কলেজগেট, মোহাম্মদপুর, আওলাদ হোসেন মার্কেট, বিবি এভিনিউ, দিলকুশা, মগবাজার, সেগুনবাগিচা, মালিবাগ, মিরপুর ১২ শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, মনসুরাবাদ, চট্টগ্রাম।

আগ্রাবাদ কর্পোরেট, পাঁচলাইশ ও মিঠাগলী শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, সিলেট।

সিলেট কর্পোরেট, স্টেশন রোড, মহাজন পট্টি শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, রাজশাহী।

রাজশাহী কর্পোরেট শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, রংপুর।

কর্পোরেট শাখা ও কাঁচারী বাজার শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, খুলনা।

খুলনা কর্পোরেট শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, বরিশাল।

বরিশাল কর্পোরেট শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, যাত্রাবাড়ি, ঢাকা।

সদরঘাট, খিলগাঁও ও যাত্রাবাড়ি শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, উত্তরা, ঢাকা।

উত্তরা শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, চাঁদগাঁও, চট্টগ্রাম।

কোটহিল, সদরঘাট, বহদ্দার হাট, পাঁচলাইশ শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, কুমিল্লা।

স্টেশন রোড, কুমিল্লা কর্পোরেট শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, নোয়াখালী।

মাইজদী কোর্ট শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, চাঁদপুর।

চাঁদপুর প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, হবিগঞ্জ।

হবিগঞ্জ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, মৌলভীবাজার।

মৌলভীবাজার প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, কক্সবাজার।

কক্সবাজার প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, রাঙামাটি।

রাঙামাটি প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, বগুড়া।

বগুড়া প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, পাবনা।

পাবনা প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, সিরাজগঞ্জ।

সিরাজগঞ্জ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, কিশোরগঞ্জ।

কিশোরগঞ্জ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, টাঙ্গাইল।

টাঙ্গাইল প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, ময়মনসিংহ।

ময়মনসিংহ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, দিনাজপুর।

দিনাজপুর প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, নরসিংদী।

নরসিংদী প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, ফরিদপুর।

ফরিদপুর প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, গোপালগঞ্জ।

গোপালগঞ্জ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, কুষ্টিয়া।

কুষ্টিয়া প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, যশোর।

যশোর প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, পটুয়াখালী।

পটুয়াখালী প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, মুন্সীগঞ্জ।

মুন্সীগঞ্জ প্রধান শাখা।

বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস, ফেনী।

ফেনী প্রধান শাখা।

ভিসা সেল, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ঢাকা।

ভিসা সেল, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর শাখা, ঢাকা।

ভিসা সেল, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম।

ভিসা সেল, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর শাখা, চট্টগ্রাম।

এখন থেকে সোনালী ব্যাংক ছাড়াও আরো পাঁচটি ব্যাংকে পাসপোর্টের টাকা টাকা জমা দেয়া যাবে। এ পাঁচটি ব্যাংক হলো ঢাকা ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক ও ট্রাস্ট ব্যাংক। নতুন পাঁচটি ব্যাংকের যেকোনো শাখায় অর্থ জমা দেয়া যাবে। ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে এটি কার্যকর হবে। এসব ব্যাংকে অনলাইনে ক্রেডিট কার্ড ও মোবাইলের মাধ্যমেও পাসপোর্টের ফি পরিশোধ করা যাবে।

- ট্যুর ডট কম ডট বিডি 

 
 

You might like