ভিটা ওয়ার্ল্ড : চলার পথের হাতছানি 19/09/2016



ভিটা ওয়ার্ল্ড ঢাকা এবং চ্ট্গ্রামের ঠিক মাঝামাঝি। ঢাকা থেকে ১৩২ কি.মি,  চট্টগ্রাম থেকে ১৩০ কি.মি । ২০০৫ সালে একজন জাপান বাংলাদেশ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয় এই ভিটা ওয়ার্ল্ড । মোটেল, রেস্টুরেন্ট ও থ্রি ডি পার্ক নিয়ে এক অনন্য আয়োজন নিয়ে যাত্রা শুরু হয় ভিটা ওয়ার্ল্ডের । তৎকালীন জাপানী রাস্ট্রদূত এটি উদ্ধোধন করেন। আপনি যদি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম, জগন্নাথ দিঘী বা ফেণী জেলার কোনো স্থানে ভ্রমনে যান তাহলে এখানে থাকতে পারবেন। কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে ফেনী থেকে একটু কাছেই বলা যায়। তবে রাস্তা এখন দুই রুট হয়ে যাওয়ার কারণে এটা ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম  যাওয়ার সময় বামপাশে পড়লেও চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা আসার সময় আপনার চোখে নাও পড়তে পারে। কারণ এই জায়গাতে রাস্তার লেন দুইভাগে বিভক্ত  হয়ে গিয়েছে।

এটা মূলত হাইওয়ে রেস্টুরেন্ট হিসেবে পরিচিত। মূল হোটেলের পিছনে রয়েছে একটি আই্যলান্ড রিসোর্টে চারদিকে জলবেস্টিত আইল্যান্ডে বসে খাওয়া দাওয়া গল্প আড্ডাসহ যাবতীয় আয়োজন। রয়েছে একটি ওয়াচ টাওয়ার। চারদিকের জলে ঘুরে বেড়ানোর জন্য রয়েছে হংস নৌকা।

tour.com.bd এর পৃষ্ঠপোষকতায় ২০১৬ সালের ১২ ফ্রেব্রুয়ারী থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত পায়ে হেঁটে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ ভ্রমনের সময় ১৩ মার্চ আমি এখানে রাত্রিযাপন করি। এখানকার পরিবেশ ও রুম বেশ ভালো। খাবারও ভালো লেগেছে। এটা ছিলো আমার ৪৬ দিনের সফরের সবচে ব্যয়বহুল রাত। কর্মীদের আন্তরিকতা ছিলো। তারা ন্যাশনাল আইডি কার্ড এবং ভ্যাট এর ব্যাপারে সচেতন। সুতরাং এখানে থাকতে গেলে বিষয়গু্লো মাথায় রাখবেন।

এখানে তিনটি ডাইনিং রয়েছে। ডাইনিংগুলো হল আন্তর্জাতিক মানের রেস্ট্রুরেন্ট, একটি ফাস্টফুড ও একটি ক্যাফে কর্ণার।এছাড়া লাক্সারিয়াস অ্যাকোমোডেশন সুবিধাসহ সুইট, এক্সিকিউটিভ ও ডিলাক্স রুম রয়েছে।

অফিসিয়াল প্রোগ্রাম ও যেকোন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ সেমিনার ও মিটিং করার জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানসহ একটি কনফারেন্স হল রয়েছে।SHINRIKOEN রেস্টুরেন্ট নিচতলায় অবস্থিত। এখানে ১২০ জনের বসার ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে সাধারণত বাংলাদেশী খাবার পাওয়া যায়।ভিটা ওয়ার্ল্ডের মূল ভবনের ২য় তলার ইস্টব্লকে রয়েছে কনফারেন্স/বোর্ড মিটিং রুম। একান্ত (বাসরী), একটি পারসোনালাইজ রেস্টুরেন্ট ।এখানে বিয়ের অনুষ্ঠান, পরিবারের ও সাংস্কৃতিক যেকোন ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করার ব্যবস্থা রয়েছে। নিচ তলায় দক্ষিন ব্লকে একটি ফাস্টফুড ও ক্যাফে কর্নার রয়েছে।এখানে নানা ধরনের মিষ্টি জাতীয় খাবার ও বেকারীর ফুডগুলো পাওয়া যায়।

এখানে দুটি আন্তর্জাতিক মানের রেস্ট্রুরেন্ট রয়েছে। এর মধ্যে চন্দনা একটি। চন্দনা রেস্ট্রুরেন্ট  ২য় তলায় অবস্হিত।ইংলিশ, ইটালিয়ান, থাই, চাইনিজ, ইন্ডিয়ান এবং বাংলাদেশী খাবার পাওয়া যায়। এখানে স্পেশাল বুফে লাঞ্চের জন্য প্রত্যেকের খরচ হয় ৩৫০ টাকা।৩১০ টাকায়ও বুফের ব্যবস্থা রয়েছে । ভিটাওয়াল্ডে রয়েছে সব সময় কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস, সাধারন রুম ব্যতীত সকল রুম শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত, সার্বক্ষণিক জেনারেটরের ব্যবস্থাও রয়েছে। 

মিনি শপিং ও ওয়াশিং কোন ধরনের চার্জ ব্যতীত, গরম ওঠান্ডা পানির ব্যবস্থা রয়েছে, ২৪ ঘন্টা নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ, ফ্রিকোয়েন্ট এবং কর্পোরেট ভ্রমনকারীদের জন্য বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে, সকল ধরনের বিলের সাথে ১৫% ভ্যাট ও ৫% সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করতে হয়।

ভাড়া কত ?

এক্সিকিউটিভ ডিলাক্স  রুম: কিছু: ৪,২৫০ টাকা

সেমি ডাবল বেড : ৪,২৫০ টাকা

মাস্টার বেডরুম, : ৫০০০/- টাকা

কাপল বেড: ৩৮৫০ টাকা

বুকিংয়ের জন্য: +৮৮-০১৭১১-৮৭৬৪০৫, প্রধান কার্যালয়: ৮৮-০২-৯১৩৭০৯৭, আন্তর্জাতিক ও কর্পোরেটঅতিথিদের জন্য: ০১৮১৭-১২৩৩২০, ০১৭১৪-২৯৭২০২, ০১১৯১৫২৪২১৪, চিওড়া, চৌদ্দগ্রাম, কুমিল্লা,বাংলাদেশ। 

আমাদের প্যাকেজগুলো দেখতে এখানে ক্লিক করুন http://tour.com.bd/tours

আমাদের বান্দরবান প্যাকেজটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন http://tour.com.bd/tours/bandarban-group-tour?

বুকিংয়ের জন্য কল করুন  ০১৮১১৪৮০৮৩২, ০১৮১১৪৮০৮৩৩,

লেখা ও ছবি: জাহাঙ্গীর আলম শোভন