বিমান ডুবিয়ে পর্যটন ! 13/06/2016



পৃথিবীর একেক দেশের রয়েছে একেক রকম সৌন্দর্য। আর এই সৌন্দর্যের টানেই সেখানে ছুটে যান পর্যটকরা। এবার পর্যটক টানতে অদ্ভুত এক কাণ্ড করেছে তুরস্ক।

একটি পুরাতন বিমানকে ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে সমুদ্রে। শুধু বিমানের মাথার দিকটা ভেসে রয়েছে সমুদ্রের উপরিভাগে। বাকিটা সমুদ্রের তলদেশে। তুরস্কের আইদিন প্রদেশের কুসাদাসি শহরের একটি সমুদ্রে বিমানটি রাখা হয়েছে। এ খবর জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

সমুদ্রে কৃত্রিম প্রবাল প্রাচীর তৈরি ও পর্যটক টানতেই এমন কাণ্ড করেছে সরকার। বিমানটিকে সমুদ্রে ডোবাতে সময় লেগেছে আড়াই ঘণ্টা। আর ছোট ছোট নৌকায় করে এই বিমানডুবি প্রত্যক্ষ করেন সমুদ্র তীরে উপস্থিত দর্শনার্থীরা।

এ-৩০০ বিমানটির পাখা ৪৪ মিটার চওড়া ও ৫৪ মিটার দীর্ঘ। ৩৬ বছরের পুরোনো এই বিমান ৯৩ হাজার ৩০৬ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে এটি কিনে নেয় কুসাদাসি নগর কর্তৃপক্ষ। ডুবো এই বিমানের ভেতরে যাওয়ার অনুমতি পাবেন শুধু প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা।

তুরস্কের কুসাদাসি শহরের মেয়র ওজলেম সেরিকোগলু বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে সমুদ্রের তলদেশের প্রাণিসম্পদকে রক্ষা করা। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্যই আমরা বিমানটিকে এখানে নিয়ে এসেছি। আমরা কুসাদাসিকে বিশ্বের ডাইভিং পর্যটনের কেন্দ্রে পরিণত করতে চাই।’

সেরিকোগলু আরো বলেন, ‘আমরা কুসাদাসির পর্যটনশিল্পকে আরো বিস্তৃত করতে চাই যাতে বছরের ১২ মাসই এখানে পর্যটকরা আসেন।’

অবশ্য এর আগেও তুরস্কের বিভিন্ন রিসোর্টে ছোটখাট বিমান ডোবানো হয়েছে পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য। তবে তুরস্কে বেশ কয়েকবার সন্ত্রাসী হামলার পর পর্যটকদের ভিড় কমে গেছে।

তুরস্কের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্যমতে, গত চার মাসে ১৬ শতাংশ পর্যটক কমে গেছে তুরস্কে। দেশটির রাজধানী আঙ্কারায় ৬৮ শতাংশ রুশ পর্যটকের উপস্থিতি কমে গেছে এই বছরের প্রথম চার মাসে। আবার পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য এবার বড় আকারের বিমান সমুদ্রে ডুবিয়ে দিল তারা।

You might like