মধ্যরাত থেকেই ‘ঈদ ভিসা ক্যাম্পে’ দীর্ঘ লাইন ধরেছে 04/06/2016



কিছুক্ষণের মধ্যে শুরু হচ্ছে ভারতীয় ‘ঈদ ভিসা ক্যাম্প’। ঝামেলাহীন ই-টোকেন ছাড়াই ভিসা নিতে শুক্রবার (০৩ জুন) দিনগত মধ্যরাত থেকেই গুলশান বা‌রিধারার রোডে দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করছেন ভিসা প্রত্যাশীরা।

আজ শ‌নিবার (০৪ জুন) সকাল ৮টায় ‘ঈদ ভিসা ক্যাম্প’র উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

রাজধানীর বারিধারায় ভারতীয় হাইক‌মিশন (আমেরিকান দূতাবাস সংলগ্ন) কার্যালয়ে এ বিশেষ ক্যা‌ম্প চালু করা হচ্ছে।

ঈদ উপলক্ষে প্রথমবারের মতো বিশেষ এ ক্যাম্প চালু করছে ভারতীয় হাই ক‌মিশন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ৪ জুন থেকে শুরু হওয়া এ ক্যাম্প চলবে ১৬ জুন পর্যন্ত। প্র‌তি‌দিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ ক্যাম্পের কার্যক্রম চলবে। ‌তবে ১০ জুন বন্ধ থাকবে বিশেষ এ ক্যাম্প।

অনলাইনে ফরম পূরণ করে কোনো নির্ধা‌রিত তা‌রিখ ছাড়াই ঈদ ভিসা ক্যাম্প চলাকালে সহজে তা জমা দিতে পারবেন ভারত ভ্রমণে আগ্রহীরা।

‌এদিকে, ভিসা প্রত্যাশীরা শুক্রবার গভীর রাত থেকেই বা‌ড়িধারায় আমে‌রিকান দূতাবাসের সড়কের মাথা থেকে বাঁশতলা দিয়ে শাহজাদপুর সরকা‌রি প্রাথ‌মিক বিদ্যালয় পর্যন্ত কয়েক‌টি পৃথক লাইনে অপেক্ষা ক‌রছেন।

ক্যাম্পে আসার নিয়ম
ঈদ ভিসা ক্যাম্প ভারতীয় হাই কমিশনের নতুন চ্যান্সেরি কমপ্লেক্স ১-৩ জাতিসংঘ সড়ক, বারিধারায়। ক্যাম্প চলবে ৪-১৬ জুন। পার্ক রোডের চ্যান্সেরি গেট দিয়ে ক্যাম্পে ঢুকতে হবে। ক্যাম্পের ভেতরে কোনো ব্যাগ ও মোবাইল আনা যাবে না।

যোগ্যতা
বর্তমানে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগে বসবাসকারী বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য শুধুমাত্র এ ক্যাম্প খোলা থাকবে। আবেদনকারীদের স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। তবে একসঙ্গে ভ্রমণেচ্ছু পরিবারের সদস্যদের (পিতা-মাতা, ছেলে-মেয়ে, স্বামী-স্ত্রী) পক্ষে একজন আবেদনপত্র জমা দিলেই হবে।আবেদনকারীর পাসপোর্টের মেয়াদ আবেদন করার তারিখে কমপক্ষে ৬ মাসের মেয়াদ থাকতে হবে এবং পাসপোর্টে কমপক্ষে দুই পৃষ্ঠা খালি থাকতে হবে।

ফি
ভিসা আবেদন গ্রহণের জন্য ভারতীয় হাইকমিশনের আউটসোসিং এজেন্সি ইন্ডিয়ান ভিসা অ্যাপলিকেশন সেন্টারের ভিসা প্রসেসিং ফি ৬০০ টাকা। ভিসা প্রসেসিং ফি ছাড়া আর কোনো ভিসা ফি নেই। ভিসা প্রদানের ক্ষেত্রে ভারতীয় হাইকমিশনের কোনো এজেন্ট বা মাধ্যম নেই। ভিসা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দানকারী ব্যক্তিকে টাকা দিতে নিষেধ করা হয়েছে।

ভিসা প্রত্যাশী মো. রাশেদ বিডিটেকটিপস্ জানান, ভোর তিনটার সময় ‌এসেই ২০ জনের পেছনে দাঁড়াতে পেরে‌ছি। ক্যাম্পে কেনো, অন্য সময়তো ভিসা সংগ্রহ করা যায় এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, অন্য সময় ই-টোকেন সংগ্রহ করতে দুই থেকে তিন হাজার টাকা দালালদের দিতে হয়। এখানে সেটা নেই। ফরম পূরণ করেই জমা দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। তাই কষ্ট হলেও লাইনে অপেক্ষা কর‌ছি।

আরেক ভিসা প্রত্যাশী শিখা রা‌নী বলেন, পয়সা কম তাই ঈদ ভিসা ক্যাম্পে আস‌ছি। এখানে কোনো টোকেন নিতে হচ্ছে না।

এদিকে ক্যাম্পে প্রথম ২০০ জন ফরম পূরণকারীর জন্য থাকছে ৠাফেল ড্র। এতে বিজয়ীরা প্রত্যেকে পাবেন ঢাকা-‌দিল্লি, ঢাকা-মুম্বাই, ঢাকা-কলকাতা আসা-যাওয়ার দু’টি প্লেন টি‌কিট।