ভ্রমনের জন্যে সেরা ৪ শহর 24/05/2016



প্রত্যেকটি মানুষই চায় খানিকটা বেশি টাকা ও সময় খরচ করে হলেও এমন কোন স্থান থেকে ঘুরে আসতে যেখানে গেলে এই ত্যাগটুকু পুরোপুরি সফল হবে। পৃথিবীতে তো পর্যটনস্থানের অভাব নেই। প্রত্যেকটি দেশেরই রয়েছে পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্যে নানা ধরনের সম্পদসম্ভার। কিন্তু এদের ভেতরে কোন স্থানগুলো সবচাইতে বেশি আকর্ষণীয়? নিশ্চয়ই বাইরে বেরোবার আগে সেটা জানতে চাইবেন আপনি। আর আপনাকে সাহায্য করতে পারে এক্ষেত্রে একমাত্র তারাই যারা এর আগেও ঘুরে এসেছে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে। দেখে এসেছে এর সমস্ত রুপ-সম্ভার! আর এরকম কিছু পর্যটকের ভোটে নির্বাচিত পৃথিবীর ভেতরে সবচাইতে সেরা চারটি শহরের কথা নিচে দেওয়া হল।

১. কিয়োটো, জাপান

অন্য কোন দেশে কেন বেড়াতে যেতে চাইছেন আপনি? নতুনত্বের স্বাদ পেতে? নিজের ভেতরের ভালোবাসা আর উদ্যমকে জাগিয়ে তুলতে? হারিয়ে যাওয়া রঙকে ফিরিয়ে এনে মন ভরিয়ে তুলতে? ক্লান্তি ভুলতে? নাকি ধর্মীয় কোন স্থান পরিদর্শন করতে? ঘুরে আসুন জাপান। এখানে এ সবকিছু একসাথেই পেয়ে যাবেন আপনি। কি নেই জাপানে? একানকার শিমোগামো আর শিন্তো বেদী আপনাকে মনে করিয়ে দেবে ৬ষ্ঠ শতাব্দীর কথা। তখনকার কারুকার্যময় স্থাপত্যের কথা। কিয়োটোর পরিবেশ আপনাকে করে তুলবে ভালোবাসাময়।

এখানকার সামুরাইদের দেখে প্রাণচাঞ্চল্য তো বাড়বেই, সানেন-জাকা আর নিনেন-জাকার পথগুলো আপনাকে নিয়ে যাবে অনেক আগের কোন সময়ে। পাহাড়, রঙ, গন্ধ- সবকিছুর মিশেল পাবেন আপনি এখানে। কিয়োটোতে জাপানের রাজা বাস করতেন এক সময়। ওখানে গেলে রাজকীয় প্রাসাদও দেখা হবে। এ তো গেল দিনের বেলায়। সূর্য ডোবার পরে চলে যেতে পারবেন পন্টোচোতে। অসংখ্য গান-ছন্দ-রং এর খোঁজ পাবেন আপনি।

২. রোম, ইতালি

ইউরোপের এই দেশটিতে পর্যটক একটু কম আনাগোনা করলেও প্রচন্ড রকমের সুন্দর এই শহরটিতে রয়েছে অন্যরকম এক আবেশ। বিশেষ করে গরমের সময়ে সূর্য ডোবার সময়ে পাওয়া নরম আলো মাতিয়ে দেবে যে কারো মন। যদি রোমের অন্যতম আকর্ষণ কলোসিয়ামকে হাতছাড়া না করতে চান তাহলে চলে যান ওখানে খুব সকালেই। অনেক অনেক প্রাচীন ও গণ্যমাণ্য মানুষের পোশাক পরা মানুষকে দেখতে পাবেন ওখানে।

তবে চিন্তার কিছু নেই। ওরা আর কিছু নয়, ছবি তুলিয়ে কয়েকটা টাকা কামানোর জন্যেই ওভাবে দাড়িয়ে রয়েছে। পর্যটনের শহর হিসেবে রোমে রয়েছে অনেক অনেক রেষ্টুরেন্ট। কথায় বলে পেটে খেলে পিঠে সয়। আর তাই পেটের খুশিটাকে যদি আর সবকিছুর সাথে পুরোপুরি পেতে চান তাহলে ঘুরে আসুন রোমে।

৩. সিয়েম রিপ, কম্বোডিয়া

কম্বোডিয়া যেতে হলে ফোনোম পেনে নামতেই হবে আপনাকে প্লেন থেকে। সেখান থেকে সোজা নৌকায় করে চলে যেতে পারেন সিয়েম রিপে। আর একবার যদি যান হয়তো নিজের বেশিরভাগটা সময় সেখানে কাটিয়ে মন চাইবে আপনার।অসাধারন এই সিয়াম রিপ হচ্ছে এমন একটি স্থান যেখানটায় অতীত ও বর্তমান একই সাথে মিশে গিয়েছে।

ইতিহাস আর প্রযুক্তির মিশেল ঘটেছে এখানে। প্রচুর পর্যটক আসার ফলে এখানে তৈরি হয়েছে পাঁচ তারকা অনেক হোটেল। তবে এর পাশাপাশি এখানে আপনি দেখতে পাবেন ফ্রেঞ্চ কলোনির অনেক ঐতিহাসিক নিদর্শনও। তবে সবচাইতে অবাক করা আর স্মরণীয় অভিজ্ঞতা আপনার হবে যদি আপনি একবার সিয়াম রিপের ভেসে থাকা বাজারে ঘুরে আসেন। যেখানে সমস্ত মানুষ নৌকার ওপরেই বাজার করতে যায়।

৪. জেরুজালেম, ইসরায়েল

ইসরায়েলের এই শহরটি নিয়ে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েল দুটি দেশেরই দাবি রয়েছে। দুটো দেশই তাদের ধর্মীয় অনুভূতি ও অন্যান্য জায়গা থেকে এই শহরটির ওপরে অধিকার প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে আসছে। আর তাই ধর্মীয় অনুভূতির দিক থেকে এই শহরটি সবার কাছেই অনেক আকর্ষনীয় পর্যটনস্থল হয়ে উঠেছে। পবিত্র শহর নামে পরিচিত জেরুজালেমে আছে বাইব্লিক জু।

যেখানে হিব্রু ভাষার বাইএল সাজানো আছে। এচাড়াও আপনি একানে এলে যেতে পারেন মৃত সাগরেও। এখানে কখনোই কোন মাছ পাওয়া যায়না। অতিরিক্ত লবনাক্ততার জন্যে মানুষও ভেসে থাকতে পারে এতে। ৬০০০ বছরের পুরোন এই শহরে এলে আপনি কেবল চোখেই দেখতে পাবেননা, মনের ভেতরেও অনুভব করবেন অন্যরকম এক শক্তি।