পর্যটকদের চোখে বাংলাদেশের সেরা ১০টি স্হান 03/05/2016



এ যেন মেঘের সাথে লুকোচুরি খেলা খেলতে খেলতে পাহাড়ের ঘুমিয়ে পড়ার কাব্য, মেঘ এবং পাহাড় যখন মিলেমিশে একাকার তখনই ফুটে ওঠে রূপের অকৃত্তিম বৈচিত্র্য । রংধনুর রঙে আঁকা মেঘ যখন তার কোমল স্পর্শর চাদর দিয়ে পাহাড়কে ঢেকে দেয় তখন পাহাড়ের বুকে শান্তি ফিরে আসে । মেঘ বন্ধুকে আলিঙ্গন করতে সে নির্দ্বিধায় তার বুক বাড়িয়ে দেয় ।  এই অকৃত্তিম রূপই প্রতিবছর হাজার হাজার পর্যটককে টেনে নিয়ে আসে দেশ বিদেশের নানা প্রান্তবিন্দু থেকে । বাংলাদেশেও যে এমন সুন্দর সুন্দর স্হান রয়েছে তা হয়তো অনেকেই বিশ্বাস করতে পারবেন না । আসুন আজ আমরা অন্য চোখ দিয়ে বাংলাদেশকে একবার দেখি ।

লিখেছেন : শামীমা আকতার আতিকা

বিস্ময়কর বান্দরবান 

পাহাড়ের সর্বোচ্চ চূড়া থেকে এ যেন পুরো দেশটাকেই একবার দেখে নেয়া । হা বান্দরবানের কথাই বলছি, অনেকেই একে বাংলার দার্জিলিং হিসেবে আখ্যায়িত করে থাকেন । এর রুপের পরিধি বলে শেষ করা যাবে না, লিখেও এর পরিপূর্ণ ব্যাখ্যা দেয়া সম্ভব নয় । কি নেই বান্দরবনে ? মাথার ওপর সুবিশাল আকাশ, পায়ের নীচে সুউচ্চ পাহাড় । নিমিষেই মেঘের কনা বুকের কাছে নেমে আশে ছুঁয়ে দেবে প্রশান্তির পরশ। বুকের ভেতর জমে থাকা দীর্ঘশ্বাস গুলো মেঘের সঙ্গেই উড়ে চলে যায়, মুখ থেকে বেরিয়ে আসে আহারে ! এ রুপ আমার বাংলা মায়ের এতদিন কোথায় লুকিয়ে ছিল ? আসুন দেখে নাই বান্দরবানের আনাচে কানাচে কি কি সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে ।

নীলগিরি

এমন কেউ নেই যে একবার বান্দরবান এসেছে কিন্তু সে নীলগিরিতে যায়নি । নীলগিরির সঙ্গে এমনই আত্মার বন্ধন পর্যটকদের । সত্যিকার অর্থেই অত্যন্ত চমৎকার একটি স্হান এই নীলগিরি । 

নীলাচল

রূপে অনন্যা এবং চিরযৌবনা বান্দরবানের নীলাচল । নীল আচল নয়, নীলাচল তার সবুজ আচল বিছিয়ে আপরুপ মোহ সৃষ্টি করে রেখেছে তার চারপাশে যা পরযটকের হৃদয়কে টেনে নিয়ে যায় অন্য এক জগতে ।

অমিয়াখুম

নাফাখুম ঝর্ণা :

বগা লেক

জাদিপাই ঝর্ণা

চিম্বুক পাহাড়

লু ফের সা ভাইতার

ঝর্ণার নামটা যেমন কঠিন তেমনি এর যাওয়ার পথও অত্যন্ত কঠিন । তারপরও মানুষ এই বন্ধুর পথ অতিক্রম করে ছুটে যাচ্ছে ঝর্ণার শীতল জলে প্রাণটা জুড়াতে ।

রাঙ্গামাটির সাজেক ভ্যালি, 


চারিদিকে আকা বাকা পাহাড়ি পথ আর পথের শেষে চোখের প্রশান্তি, যার নাম সাজেকভ্যালি। মেঘের রাজ্য সাজেক ভ্যালী প্রতি বছর হাজারো দর্শনার্থীদের মনকে আন্দোলিত করে চলেছে ।  শীত হোক বা গ্রীষ্ম সাজেক কখনোই হতাশ করবে না আপনাকে। তবে বর্ষায় সাজেকে চলে যাদুর খেলা। এই মেঘ এসে ঢেকে ফেলবে আপনাকে, আবার কিছুক্ষণের মধ্যেই বৃষ্টি,আকাশে রংধণুর খেলা ।

 রাতের আকাশে তারা খসা দেখতে পারবেন হেলিপ্যাডে শুয়ে শুয়ে। শান্তির আবেশ ছড়িয়ে রয়েছে যেন পুরো গ্রাম জুড়ে। রাস্তা পাকা হয়ে যাওয়াতে যাতায়াত ব্যবস্থাও এখন অনেক উন্নত । এককথায় স্বপ্নের মাঝে কিভাবে কেটে যাবে দিন গুলো  বুঝতেই পারবেন না। রাঙ্গামাটি জেলার অন্তর্গত হলেও খাগড়াছড়ি থেকেই সাজেক ভ্যালি বেশি নিকটবর্তী  । দূরের নীলাভ সবুজ পাহাড়ি উপত্যকা আর আকাশের মিলন হার মানায় রুপকথার হাজারো গল্পকে।

খাগড়াছড়ি :

চারদিকে পাহাড়গুলো সাড়ি বেঁধে দাঁড়িয়ে আছে, এ যেন স্বপ্নে দেখা কোন রূপকথার রাজ্য । খাগড়াছড়িতে গেলে আপনি আরো দেখতে পাবেন রহস্যময় গুহা, রিছাং ঝর্ণা এবং আরো কিছু দর্শণীয় স্হান ।

রিছাং ঝর্ণা

কক্সবাজার :

মোহনীয় সিলেট :

 

সাগরকন্যা কুয়াকাটা

সুন্দরবন

 

সেন্টমার্টিন

 

নেত্রকোনার বিড়িসিড়ি

 

 

রাঙ্গামাটি

রাঙ্গামটির পাহাড়ে মন ছুটে যায় আহারে, সামনে আছে রঙিন অচেনা পথ, পথের শেষে খুজে পাবে আশ্চর্য সৌন্দর্যের সর্বশেষ চূড়া । 

 

কাপ্তাই লেক