অপূর্ব কিছু জলপ্রপাত 03/04/2016



পৃথিবীর সব সৌন্দর্য এখনও উন্মোচিত হয় নি। পাহাড়ে-জঙ্গলে এমন হাজারো জলপ্রপাত আছে যা এখনও রয়েছে মানুষের ধরা ছোঁয়ার বাইরে। তবে যতগুলো জলপ্রপাত নজরে এসেছে তাদের রূপ মাধুর্য্যও মনকে দিশেহারা করে দেবার জন্য যথেষ্ট। শুধু ছবি দেখলেই আর ঘরে ফিরতে মন চাইবে না আপনার, হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করবে প্রকৃতির অপরূপ অস্তিত্বে। এক নজরে দেখে নিই এমন অসাধারণ কিছু ঝর্ণা।

প্লিটভাইস জলপ্রপাত, ক্রটিয়া

দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের সবচেয়ে প্রাচীন ন্যাশনাল পার্ক, প্লিটভাইস লেক ন্যাশনাল পার্ক, ক্রটিয়া গড়ে উঠেছে এই জলপ্রপাতকে ঘিরে। ১৬টি সবুজ-নীল প্লিটভাইস লেক এবং প্রাকৃতিকভাবে তৈরি বাঁধ থেকে নেমে এসেছে ছোট-বড় অনেকগুলো জলপ্রপাত। এর মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ  জলপ্রপাতটির দৈর্ঘ্য ২৩০ ফুট। বিভিন্ন ধরণের খনিজ লেকগুলোকে দিয়েছে ভিন্ন ভিন্ন রঙ। প্লিটভাইসকে আরও অপরূপ করেছে একে ঘিরে থাকা সবুজ বন। শীতে লেকের পানি বরফে পরিণত হয়। এটি ইউনেস্কো ঘোষিত প্রাকৃতিক বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্যতম। 

ল্যাংফোসেন জলপ্রপাত, অয়েস্টার্ন নরওয়ে

এই সুদীর্ঘ জলপ্রপাতটি পশ্চিম নরওয়ের এটনে অঞ্চলে অবস্থিত। বিশ্ব জলপ্রপাত ডাটাবেজ একে বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর জলপ্রপাত হিসেবে তালিকাভুক্ত করেছে। ৬০০ মিটার উঁচু জলপ্রপাতটি ইউরোপের ১৬তম দীর্ঘ জলপ্রপাত। চারপাশের অভূতপূর্ব পরিবেশ এর সৌন্দর্যকে আরও মোহনীয় করেছে। পানির ধোঁয়া ওঠা স্রোত আর রংধনু যেন স্বর্গের সৌন্দর্য্যকে হার মানায়।  

হোগেনাক্কাল, দক্ষিণ ইন্ডিয়া
দক্ষিণ ইন্ডিয়ার তামিল নাড়ুতে হোগেনাক্কাল জলপ্রপাতের অবস্থান। একে বলা হয় ইন্ডিয়ার নায়াগ্রা। মেলাগিরি হিলসে ঘেরা অপূর্ব জলপ্রপাতটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৭৫০ ফুট উঁচু। ঘন মেলাগিরির ভেষজ উদ্ভিদ হোগানাক্কালকে করেছে আরও নবীন আর আনন্দদায়ক। কাভেরী নদীতে নৌকায় চড়ে আপনি জলপ্রপাতটির ঘনিষ্ট সান্নিধ্য নিতে পারবেন। এটি ভ্রমণের জন্য বর্ষা সবচেয়ে উপযুক্ত সময়।
হাবাসু জলপ্রপাত, এরিজোনা
গ্রান্ড কেনিয়ান এরিজোনার অন্যতম আকর্ষনীয় জলপ্রপাত এটি। গাঢ় নীল জলের জলপ্রপাতটি লাল পাথররের পাহাড়ে ঘেরা। প্রাকৃতিক পুল আর বাধ একে আরও অপরূপ করেছে। জলপ্রপাতটিকে ঘিরে থাকা চুনা পাথরের পাহাড় হাজার বছরের পুরোনো। গ্রান্ড কেনিয়র চমৎকার প্রাকৃতিক পরিবেশ জলপ্রপাতটির আকর্ষণ বাড়িয়ে দিয়েছে বহুগুণে। 

তুগেলা ফলস, দক্ষিণ আফ্রিকা
তুগেলা বিশ্বের ২য় সর্বোচ্চ জলপ্রপাত। একে ঘিরে দক্ষিণ আফ্রিকায় গড়ে উঠেছে রয়েল নাতাল ন্যাশনাল পার্ক। তুগেলার উচ্চতা ৩,১১০ ফুট। তুগেলা নদী থেকে উৎপন্ন হয়ে এটি ৩টি ভিন্ন পথে ধাবিত হয়েছে নিচের দিকে। গ্রীষ্মের বৃষ্টিতে সবচেয়ে চমৎকার লাগে জলপ্রপাতটি। আশপাশের পর্বতমালা তুগেলার রূপকে বাড়িয়ে দিয়েছে বহুগুণে। 

ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাত, দক্ষিণ আফ্রিকা
জাম্বিয়া এবং জিম্বাবুয়ের বর্ডারে অবস্থিত জলপ্রপাত এটি। এখানে ৫০০ মিলিয়ন কিউবিক মিটার পানি ঝরে পড়ে প্রতি মিনিটে। পানির শক্তিশালী স্রোতের কারণে ভিক্টোরিয়াকে দেখা যায় ৫০ কিলোমিটার দূর থেকেই। এটি প্রাকৃতিক সপ্তমাশ্চর্যের অন্যতম। ভিক্টোরিয়া রেইন ফরেস্টের বৃষ্টি জলপ্রপাতের পানির উৎস। পূর্নিমায় চাঁদের আলো আর জলপ্রপাতের পানির স্রোত এক নৈস্বর্গিক আবেশ তৈরি করে। ভিক্টোরিয়ার সীমান্ত পর্যন্ত সাঁতার কেটে যেতে পারবেন আপনি, পড়ে যাবেন না! এখানে আছে প্রাকৃতিকভাবে তৈরি দেয়াল যাকে বলা হয় ডেভিলস পুল।

এঞ্জেলস ফলস, ভেনিজুয়েলা
৩,২২২ ফুট উচ্চতার জলপ্রপাতটি বিশ্বের সর্বোচ্চ জলপ্রপাত। একে ঘিরে গড়ে উঠেছে ক্যানাইমা ন্যাশনাল পার্ক, যা পৃথিবীর ৩য় বৃহৎ ন্যাশনাল পার্ক। মজার ব্যাপার হল, এঞ্জেলস ভেনিজুয়েলার জঙ্গল থেকে ৩,২৩০ মিটার উঁচু, যেন এটি ভেনিজুয়েলার মুকুট! বর্ষায় এঞ্জেলস দুইটি ধারায় ভাগ হয়ে নেমে আসে। এর গতি এতই বেড়ে যায় যে অনেক দূর থেকে পানির ঝাপটা এসে লাগে ভ্রমণকারীদের গায়ে। 
নায়াগ্রা, আমেরিকা
আমেরিকা এবং কানাডার বর্ডারে অবস্থিত নায়াগ্রা বিশ্বের সবচেয়ে চওড়া জলপ্রপাত। নায়াগ্রা মূলত ৩টি জলপ্রপাতের সমষ্টি, আমেরিকান ফলস, ব্রাইডাল ভেইল ফলস, এবং হর্স সু ফলস। এক হিমবাহ ক্রিয়ার মাধ্যমে ১০,০০০ বছর আগে জন্ম নেয় নায়াগ্রা। নায়াগ্রাকে ঘিরে গড়ে ওঠা আমেরিকার প্রাচীনতম স্টেট পার্কটিতে প্রতিবছর ৩০ মিলিয়ন পর্যটক আসে। রাতের নায়াগ্রার রূপ যেন হার মানায় পৃথিবীর অন্য সকল সৌন্দর্য্যকে।
সৌজন্যঃ প্রিয় ডট কম 

You might like