নৈসর্গিক নিউজিল্যান্ড ভ্রমণ 24/03/2016



নিউজিল্যান্ড একটি চমৎকার বন্ধুবৎসল দেশ। মনোমুগ্ধকর ফটোজেনিক প্রকৃতি যেন অপার্থিব সৌন্দর্য্যের আধার। এখানে আছে ঘন বন, পাহাড়, সমুদ্র সৈকত, গ্লাসিয়ার, উষ্ণ অঞ্চল সব কিছু। ঐতিহ্যবাহী মাউরি সংস্কৃতি মিশেছে শহুরে আধুনিকতার সাথে, চমৎকার সব গ্রাম আর বিশাল অপূর্ব বন্য জীবন, যে কোন ধরনের রোমাঞ্চকর অ্যাডভেঞ্চারের জন্য একদম উপযুক্ত। বিপুল বৈচিত্র্যের ভান্ডার থেকে তুলে ধরছি কয়েকটি সেরা পর্যটক আকর্ষণ।
করমেন্ডাল পেনিনসুলা
উত্তর-পূর্ব পেনিনসুলা বিখ্যাত এর চমৎকার সাদা আর সোনালি বালুকাবেলার জন্য। অপূর্ব সব কোস্টাল দৃশ্যাবলী, বন, সমূদ্র আপনার অবসরকে করতে পারে বর্নিল, কিন্তু প্রশান্ত। থামেস নামক ছোট্ট কিন্তু ছবির মত সুন্দর গ্রামটি থেকে শুরু করুন আপনার ভ্রমণ, যার রয়েছে স্বর্ণ উত্তোলনের দীর্ঘ ইতিহাস । পথে দেখে নিতে ভুলবেন না উষ্ণ পানির বীচ, যেখানে ভ্রমণকারীরা বালির নীচের স্প্রিংস থেকে নিজেই পুল খনন করতে পারেন।
 
আবেল তাসনাম ন্যাশনাল পার্ক
দেশটির দক্ষিণ দ্বীপের উত্তরে অবস্থিত এই জাতীয় উদ্যানটি। বিশাল এই পার্কটি হাইকারদের স্বপ্ন। এখানে প্রবেশ করতে হবে নৌকায় অথবা পায়ে হেটে কিংবা ছোট কোন প্লেনে। কিন্তু আপনার ভ্রমণটি সার্থক হবে এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। পর্বতময় পথ ধরে হেটে বেড়ানো, নীল পেঙ্গুইন, ওয়েকাস, ওয়াস্টার কেটচারস, উড কবুতর এবং অন্যান্য বিরল পাখি দেখতে পাবেন এখানে।
 
স্কাই টাওয়ার
নিউজিল্যান্ডের সবচেয়ে বড় শহরে অবস্থিত স্কাই টাওয়ার আসলে অবজারভেশন এবং টেলিকমিউনিকেশন টাওয়ার। দক্ষিনাঞ্চলীয় হ্যাম্পসায়ারে এটি সবচেয়ে উঁচু একক স্থাপত্য। এর উচ্চতা ৩২৮ মিটার বা ১,০৭৬ ফুট। অকল্যান্ড স্কাইলাইনে স্কাই টাওয়ার একটি আইকনিক স্থাপত্য হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। টাওয়ারটি থেকে ৮০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত চমৎকার সব প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখা যায়। অর্বিট রিভলভিং রেস্টুরেন্টে চমৎকার খাবারের ব্যবস্থা আছে এখানে।
 
নাপিয়ার আর্ট ডেকো
নাপিয়ার অবস্থিত হাওকে বে তে, দক্ষিণ দ্বীপের পূর্ব কোস্টে। এটি বিখ্যাত চোখ ধাঁধানো সব শিল্প ডেকো স্থাপত্যের জন্য। ১৯৩১ সালের এক ভূমিকম্পে নাপিয়ারের অধিকাংশ অংশ ধূলিস্যাত হয়ে যায়। এর পর শহরটিতে আবার যখন দালানকোঠা গড়ে ওঠে তাতে সচেতনভাবেই শৈল্পিক ছাপ রাখা হয়। এর ফলে নিউজিল্যান্ডের অন্যান্য শহর থেকে এটি পায় ভিন্নতা এবং একই পর্যটক জনপ্রিয়তা। প্রতি ফেব্রুয়ারিতে হাজারো পর্যটক এখানে ভীড় জমায় একটি আর্ট ডেকো উইকেন্ডে। এই ইভেন্টটি ডেডিকেট করা হয় স্টাইলের প্রতি, ভিন্টেজ গাড়ি, পিকনিক আর সোপবক্স ডারবির প্রতি।
 
কাইকোউরা
সামুদ্রিক খাদ্যপ্রেমিকদের দক্ষিণ দ্বীপের এই ছোট্ট উপকূলীয় অঞ্চলটি আদর্শ। আপনি পাবেন শিল মাছ, ডলফিন, স্পার্ম তিমি এবং আল্বাট্রস। স্বাদ গ্রহণ করতে পারেন ফ্রেশ ক্রেফিশ, মাসেলস, নীল কড এবং অন্যান্য সামুদ্রিক খাবারের। আর আপনি যদি রোমাঞ্চপ্রিয় হন তাহলে হেটে যেতে পারেন কাইকোউরার বিচিত্র বনাঞ্চলের মধ্য দিয়ে।
সৌজন্যে : প্রিয়.কম

You might like