খেয়েছেন তো দিল্লিকা লাড্ডু? 16/03/2016



দিল্লিকা লাড্ডু খাইলেও পস্তাইবেন,না খাইলেও পস্তাইবেন”। এটি অনেক পুরনো এবং অতি পরিচিত একটি প্রবাদ।
প্রবাদটি বিয়ে-সাদিকে ইঙ্গিত করলেও আসল বাস্তবতা কি, চলুন দেখা যাক।

দিল্লিকা লাড্ডু সর্ম্পকে সুস্পষ্ট ধারনা নেই অনেকেরই। আবার অনেকেই ভেবে বসেন ‘দিল্লীকা লাড্ডু’ নিছক কথার কথা, ………কিন্তু না।

ভারতবর্ষের সবচেয়ে প্রাচীন লাড্ডুর নাম মতিচুরের লাড্ডু। যার বয়স দুই হাজারকেও অতিক্রম করেছে। এই লাড্ডু দেখতে যেমন সুন্দর খেতেও তেমনি সুস্বাদু। কড়া চিনিতে ভাজা এই লাড্ডু খেতে গিয়ে আপনার দাতে কিচির-মিচির করে উঠলে বালু ভেবে ভুল করবেননা যেন।

দিল্লির আর একটা বিখ্যাত লাড্ডু হলো ‘মেওয়া লাড্ডু’। আর এটিই ‘দিল্লিকা লাড্ডু’ নামে পরিচিত।
আকারে বড়-সড়ো এই লাড্ডু স্থান ভারতীয় বিলিয়নিয়ারদের বিলাসি খাবারের শীর্ষে। আর এত বড় লাড্ডু পৃথিবীতে আছে কিনা সেটাও ভাববার বিষয়। আর এই কারনে এটি বর্তমানে অভিজাত্য এবং সম্মানের প্রতিক হিসাবে বিবেচিত।
দিল্লির বিখ্যাত ‘বেঙ্গলি মার্কেট’ এবং ‘হলদি রাম মার্কেট’ ছাড়া এই লাড্ডু পাওয়া শুধু মুসকিলই নয় রীতিমত নামুমকিন ব্যাপার।

শোরগোল আছে, এখান থেকেই ভারতীয় সিনেমা, ক্রিকেট-ফুটবল সহ নানান সব রথি-মহারথিরা বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য লাড্ডু অর্ডার করে থাকেন। দামটা হিসেব করতে গেলে একটু বেশিই মনে হবে। কারন প্রতি কেজি লাড্ডুর গুনতে হবে ৫০০-৬০০ রুপি আর কেজিতে ওঠে মোটে ৪ টে!!  এই জন্য মনটা একটু খারাপ হলেও পকেটের অবস্থা ভালো থাকলে হাতটা লম্বা করতে ভুলবেন না। হাজার হোক, দিল্লিকা লাড্ডু বলে কথা!

এছাড়াও বেশকিছু লাড্ডু আছে যা আপনি ঘরে বসেই তৈরী করতে পারেন।
যেমন গাজরের লাড্ডু, বেসনের লাড্ডু,নারকেলের লাড্ডু, জাফরানের লাড্ডু, মুগ ডালের লাড্ডু ইত্যাদি।
ঝটপট একটা ট্রাই মারলেও কিন্তু মারতে পারেন। কেননা এ তো আর ‘দিল্লিকা লাড্ডু’ নয়, যে পস্তাবার চান্স আছে।

সৌজন্যঃ  সৈয়দা নাজমা

You might like