যে পথে একটিবার না হাঁটলে জীবনটাই বৃথা 03/03/2016



আমাদের শহরের রাস্তাগুলোতে হাঁটার সময় নাকমুখ কুঁচকে হাঁটেন না এমন মানুষ খুব কমই পাওয়া যাবে। দূষিত পরিবেশ এবং একেবারেই ভাঙাচোরা রাস্তায় পায়ে হাঁটা বেশ মুশকিলের বৈকি। ইদানীং দূষণের ছোঁয়া লেগে গিয়েছে গ্রামের পথগুলোতেও। পরিবেশ নষ্টের কারণে আগের সেই ছায়া ঢাকা সুনিবিড় পথ খুঁজে পাওয়াই দুষ্কর।

‘এই পথ যদি না শেষ হয়, তবে কেমন হতো বলোতো’ এই ধরণের রোমান্টিক গান গেয়ে চলার মত পথ আমাদের দেশ থেকে হারিয়ে যেতে থাকলেও পৃথিবীর সকল স্থান কিন্তু এমনটি নয়। বিশ্বে রয়েছে এমন অসাধারণ গাছ ও লতার তৈরি পথ যে পথগুলোতে একটিবার না হাঁটলেই নয়। দেখতে চান এই পথগুলোকে? চলুন তবে দেখে নেয়া যাক।

১. স্ট্রিট ইন বন, জার্মানি

পথের দুধারে লাগানো গাছের সারি মাথার ওপরে ফুলের চাদর তৈরি করে প্রতি বসন্তে। ঝড়ে পড়া ফুলের পাপড়িতে ছেয়ে যায় পুরো পথ।

২. দ্য ডার্ক হেজেস, নর্দান

আঠারো শতাব্দীতে ‘স্টুয়ার্ট পরিবার’ পথের দুপাশে সারি দিয়ে অনেক গাছ লাগিয়ে এই অসাধারণ পথটি তৈরি করেন। জনমতে জানা যায় এই পথটিতে দেখা মেলে ‘গ্রে লেডি’ নামক একটি অতৃপ্ত আত্মার।

৩. ওয়িস্টেরিয়া ফ্লাওয়ার টানেল, জাপান

কিটাকায়ুসু, জাপানের কাওয়াচি ফুজি পার্কে ১৫০টির বেশি ওয়িস্টেরিয়া ফুলের গাছ দিয়ে তৈরি হয়েছে এই অসাধারণ সুন্দর ফুলের টানেলটি।

৪. জ্যাকারান্ডাস ওয়াক, সাউথ আফ্রিকা

৫. বাঁশবাগানের পথ, জাপান

মেঠো পথের দুপাশ জুড়ে একইভাবে সারিবদ্ধ উঁচু উঁচু বাঁশের বাগানটি পথটিকে করে তুলেছে স্বপ্নময়।

৬. ওক অ্যালি, নিউ অরল্যান্স, লুসিয়ানা

৮০০ ফিট চওড়া রাস্তার দুইপাশে বিশাল ওক গাছের সারি রাস্তাটিকে স্বপ্নময় করে তুলেছে। যেন ক্যানভাসে আঁকা কোনো ছবি।

৭. টানেল অফ লাভ, ইউক্রেন

প্রায় ১.৮ মাইল লম্বা রেললাইনের দুপাশ দিয়ে সবুজে ছেয়ে যাওয়া টানেলটি টুরিস্টদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। বলা হয়ে থাকে ভালোবাসার মানুষটিকে নিয়ে এই টানেল ধরে চলার সময় যা ইচ্ছা করা হয় তাই পূরণ হয়ে যায়।

৮. ট্রি টানেল, নেদারল্যান্ডস

পথের দুপাশে সারিবদ্ধ ভাবে দাঁড়ানো বিশাল উঁচু গাছটি পথটিকে করে তুলেছে ছাড়া ঢাকা অপূর্ব সুন্দর একটি টানেলের মতো। এই পথে হেঁটে বেড়ানো কিংবা বসে থাকা আসলেই স্বপ্নের মতো।

 

 

You might like